শৈলকুপায় ভাত চুরির অপবাদে মাদ্রাসা ছাত্রকে হাত-পা বেঁধে অমানবিক নির্যাতন করে দুই দিন আটকে রাখার অভিযোগ দুই শিক্ষকের বিরুদ্ধে!

নিউজ ডেক্স

ঝিনাইদহের শৈলকুপার হাটফাজিলপুর মুহাম্মাদিয়া মাদ্রাসায় ভাত চুরির অপবাদে এক ছাত্রের উপর অমানবিক নির্যাতন করেছে দুই শিক্ষক। শিক্ষক মাহমুদ ও মাহাদী হাসান মাদ্রাসা ছাত্র তাওহিদ (৯) কে হাত-পা বেঁধে জোড়া বেত দিয়ে বেধড়ক পিটিয়ে দুই দিন মাদ্রাসা কক্ষে আটক রাখার অভিযোগ উঠেছে।
ঘটনাটি ঘটেছে রবিবার উপজেলার হাটফাজিলপুরে।
নির্যাতনের শিকার মাদ্রাসা ছাত্র তাওহিদ রঘুনন্দনপুর গ্রামের মান্নান বিশ্বাসের ছেলে। সে ওই মাদ্রাসায় থেকে লেখাপড়া করে বলে জানা গেছে।
তাওহিদ জানায়, মাদ্রাসার পক্ষ থেকে এর আগে ওয়াজ মাহফিল অনুষ্ঠিত হয়। সেই মাহফিলের জন্য উত্তোলনকৃত টাকা চুরি, হুজুরের ঘড়ি ও ভাত চুরির অপবাদ দিয়ে তার হাত-পা বেঁধে জোড়া বেত দিয়ে শিক্ষক মাহমুদ হাসান ও মাহাদী হাসান দুজন মিলে ঘন্টা খানেক ধরে পিটিয়েছে। এরপর সে অসুস্থ হয়ে পড়লে বাড়ী চলে আসতে চাই। তখন শিক্ষকরা তাকে রুম থেকে বের হতে দেয়না এবং খাবার আনতে অন্যদেরকে পাঠায়। পরে মঙ্গলবার সে কৌশলে মাদ্রাসা থেকে পালিয়ে বাড়ি চলে আসে।
এ ঘটনায় অভিযুক্ত দুই মাদ্রাসা শিক্ষকের বিরুদ্ধে মামলা দায়ের করবে বলে পরিবারের পক্ষ থেকে জানানো হয়েছে।
এদিকে ঘটনা ধামাচাপা দিতে ওই শিক্ষকরা মাদ্রাসার সভাপতিকে সাথে নিয়ে দৌড়ঝাঁপ শুরু করেছে বলে জানা গেছে।
উল্লেখ্য, শিক্ষক মাহাদী মাদ্রাসার সভাপতি মনোয়ার মোল্লার ভাই। ওই মাদ্রাসায় শতাধিক ছাত্রের মধ্যে প্রায় অর্ধশত ছাত্র বোডিং এ থাকে। যাদের বেশিরভাগ ছাত্রের পরিবার শিক্ষক ও সভাপতির বিরুদ্ধে মুখ খুলতে শুরু করেছে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *