গৃহবধূ নিখোঁজ, অভিযোগ নিতে দুই থানার গড়িমসি

 সাব্বির মির্জা স্টাফ রিপোর্টার

স্বামীর বাড়ি পাবনার চাটমোহর থেকে বাবার বাড়ি সিরাজগঞ্জের চৌহালীতে ফেরার পথে রেখা খাতুন (২২) নামে এক গৃহবধূ নিখোঁজ হয়েছেন।  

তিন দিন ধরে নিখোঁজ রেখাকে উদ্ধারে পাবনা জেলার দুই থানায় ঘুরেও অভিযোগ বা জিডি করতে পারেননি স্বজনরা।

ঘটনাস্থল দুই থানার সীমান্তবর্তী হওয়ায় এক থানা থেকে আরেক থানায় পাঠানো হয়েছে বলে অভিযোগ স্বজনদের।  

 

শনিবার (২২ অক্টোবর) সকালে পাবনার চাটমোহর থেকে সিরাজগঞ্জের চৌহালীতে আসার পথে রেখা খাতুন নিখোঁজ হন। তিনি চাটমোহর থানার লক্ষ্মীপুর কবরস্থান মাদরাসার শিক্ষক ইব্রাহীম খলিলের স্ত্রী ও সিরাজগঞ্জের চৌহালী উপজেলার উমারপুর ইউনিয়নের আব্দুল আওয়াল পিন্টুর মেয়ে।

সোমবার (২৪ অক্টোবর) রাতে নিখোঁজ রেখার স্বামী ইব্রাহীম খলিল বলেন, বাবার বাড়ি চৌহালী যাওয়ার জন্য শনিবার সকালে ধানুয়াঘাটা বাজার থেকে একটি অটোরিকশায় রেখাকে উঠিয়ে দেই। এরপর থেকেই তার মোবাইল ফোন বন্ধ। পরে শ্বশুরবাড়িতে খোঁজ নিলেও তার সন্ধান পাওয়া যায়নি।  

রেখার দাদা খোরশেদ আলম বলেন, প্রায় চার বছর আগে রেখার সঙ্গে ইব্রাহীম খলিলের বিয়ে হয়। বিয়ের পর স্বামী-স্ত্রী উভয়ই মাদরাসায় শিক্ষকতা করত। রেখা কিছুদিন আগে শিক্ষকতা ছেড়ে দেয়। গত শনিবার তার সিরাজগঞ্জের বাড়িতে আসার কথা। তার জন্য পরিবারের লোকজন অপেক্ষা করছিল। কিন্তু তিনদিনেও সে বাড়িতে আসেনি।  

তিনি বলেন, সোমবার রেখার বাবা আব্দুল আওয়াল পিন্টু ও স্বামী ইব্রাহীম খলীলসহ চাটমোহর থানায় অভিযোগ করতে গেলে ওসি সাহেব বলেন এ ঘটনা আমার এরিয়ার মধ্যে নয়। পরে পার্শ্ববর্তী ফরিদপুর থানায় গেলে ডিউটি অফিসার বলেন এটা ফরিদপুর থানার মধ্যে নয়। সন্ধ্যা পর্যন্ত অপেক্ষা করে আমরা চলে এসেছি।  

চাটমোহর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) জালাল উদ্দীন মোবাইল ফোনে বলেন, অভিযোগ করতে এখানে এসেছিলেন তারা। কিন্তু ঘটনাস্থল আমাদের এলাকায় না হওয়ায় জিডি বা অভিযোগ নেওয়া হয়নি। তিনি বলেন এ ঘটনা আটঘরিয়া থানা এলাকার মধ্যে ঘটতে পারে।  

ফরিদপুর থানার ডিউটি অফিসার উপ-পরিদর্শক শরিফুল ইসলাম বলেন, একটি মেয়ে নিখোঁজের ব্যাপারে থানায় এসেছিলেন তার পরিবারের লোকজন। ধানুয়াঘাটা এলাকাটি দুই থানার সীমান্তবর্তী। ঘটনাস্থল চাটমোহর থানার মধ্যে হওয়ায় আমরা অভিযোগ নিতে পারিনি।

ফরিদপুর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মিজানুর রহমান বলেন, আমি আজ সারাদিন জেলা সদরে ছিলাম। গৃহবধূ নিখোঁজের ব্যাপারে কেউ থানায় এসেছিল কিনা আমার জানা নেই। তবে ঘটনাস্থল যেখানেই হোক ভিকটিমের পরিবার এলেই অভিযোগ নেওয়া হবে।

এ বিষয়ে সহকারী পুলিশ সুপার (চাটমোহর সার্কেল) সজীব শাহরিন বলেন, ঘটনাস্থল যে এলাকার সেখানেই অভিযোগ নেওয়ার নিয়ম। ভিকটিমের পরিবারকে অফিসে আসতে বলে তিনি বলেন, যদি আমার কোনো থানার মধ্যে ঘটনা হয় তবে অভিযোগ নেওয়া হবে।  

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *