সিরাজগঞ্জে মহাসড়কের বিভিন্ন স্থানে ঝুপড়ি ঘরে তেল ক্রয় বিক্রয় ব্যবসা চলছে অবাধে

সাব্বির মির্জা স্টাফ রিপোর্টার

সিরাজগঞ্জে মহাসড়কের বিভিন্ন স্থানে ঝুপড়ি ঘরে চলছে অবাধে জ্বালানী তেলের ক্রয়-বিক্রয়ের ব্যবসা। র্দীঘদিন ধরে প্রভাবশালী মহলের ছত্রছায়ায় এ অবৈধ ব্যবসা চলছে। এ ব্যবসা চালিয়ে আসলেও নেই স্থানীয় প্রশাসনের নজরদারি।

সংশ্লিষ্ট সূত্রে প্রকাশ, বগুড়া-নগরবাড়ি মহাসড়কে সিরাজগঞ্জের বাঘাবাড়ি থেকে হাটিকুমরুল গোলচত্বর ও হাটিকুমরুল বনপাড়া মহাসড়কের বিভিন্ন স্থানে ঝুপড়ি ঘরে বিশেষ কৌশলে এ ব্যবসা চলছে এবং হাটিকুমরুল গোলচত্বর থেকে চান্দাইকোনা ও পাঁচলিয়া বাজার এলাকার বিভিন্ন স্থানে চলছে একই কায়দায় এ অবৈধ ব্যবসা।

তেলবাহী ট্যাংকলরী ও বিভিন্ন পণ্যবাহী চলাচলকারী অধিকাংশ ট্রাক চালকরা ঝুপড়ি ঘরে এই তেল ক্রয়-বিক্রিয় করছে। বিশেষ করে ঝুপড়ি ঘরের সামনে খালি তেলের ড্রাম দেখলেই থামিয়ে দেয়া হয় ট্যাংকলরী ও ট্রাক এবং ট্রাক, কাভার্ডভ্যান ও ট্যাংকলরী থেকে অসৎ চালকরা প্রায় ২০/২৫ লিটার করে এ তেল বিক্রি করে। দিনে রাতে এ তেল বিক্রি হলেও নজরে পরে না প্রশাসনের। এতে বিভিন্ন তেল কোম্পানীর এজেন্সী ও মালিকরা ক্ষতিগ্রস্থ হচ্ছে দীর্ঘদিন ধরে। বিশেষ কৌশলে এ তেল ক্রয়-বিক্রিয় করলেও সংশ্লিষ্ট প্রশাসন অজ্ঞাত কারনে নিরব ভুমিকা পালন করছে। এ কারনে মহাসড়কে লাখ লাখ টাকার এ চোরাই তেলের ব্যবসা এখন রমরমা। কম দামে কেনা এ তেল ঝুপড়ি ঘর মালিক ও অসৎ ব্যবসায়ীরা এলাকার স্থানীয় বাজার সহ মহাসড়কের বিভিন্ন স্থানে তৃতীয় হাত বদলে এ তেল বেশি মূল্যে বিক্রি করে।

পুলিশ প্রশাসনের নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক একজন কর্মকর্তা এ বিষয়ে বলেছেন, মহাসড়কের বিভিন্ন স্থানে ঝুপড়ি ঘরে তেল ক্রয়-বিক্রিয় নতুন কিছু নয়। ঝুপড়ি ঘরের আড়ালে পুলিশের নাম ভাঙ্গিয়ে কিছু সংখ্যক লোকজনের ছত্রছায়ায় চলছে এই অবৈধ ব্যবসা। তবে তেল এজেন্সী ও ট্রাক মালিকরা কঠোর ব্যবস্থা নিলে এ ব্যবসা বন্ধ হয়ে যাবে। তাদের প্রয়োজন না হলে আইন প্রয়োগকারী সংস্থারও ব্যবস্থা নেয়ার তেমন প্রয়োজন নেই।

সংশ্লিষ্ট উপজেলা প্রশাসনের নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক একজন কর্মকর্তা বলেছেন, এ বিষয়ে অভিযোগ পাওয়া গেলে আইনগত ব্যবস্থা নেয়া হবে বলে উল্লেখ করেন তিনি।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *