হাসপাতাল কর্তৃপক্ষের অবহেলায় নবজাতকের মৃত্যুর স্বজনদের অভিযোগ

নিজস্ব প্রতিবেদক:-

সাভারের তেঁতুলঝোড়া ইউনিয়নে স্ট্যান্ডার্ড হসপিটাল এন্ড ডায়াগনস্টিক সেন্টারে হাসপাতাল কর্তৃপক্ষের অবহেলায় নবজাতকের মৃত্যুর অভিযোগ পাওয়া গেছে। রবিবার ২৭ নভেম্বর সকালে এই ঘটনা ঘটে। প্রসূতির স্বামী ফয়সাল মিয়া ও স্বজনরা অভিযোগ করে জানান, শনিবার ২৬ নভেম্বর রাত ১০ টার দিকে তার স্ত্রীর প্রসব যন্ত্রণা উঠলে দ্রুত তাকে হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। ভর্তির পর হাসপাতালে কর্তব্যরত কোন চিকিৎসক না থাকায়, ওটি নার্স সুমাইয়া রোগীকে ডেলিভারি কক্ষে নিয়ে যান। এসময় চিকিৎসকের জন্য উদ্বিগ্ন হলে সেবিকা সুমাইয়া বলেন, কিছুক্ষণের মধ্যে সব ঠিক হয়ে যাবে। বারবার চিকিৎসকের কথা বললেও তা উপেক্ষা করে সেবিকা সুমাইয়া। তাছাড়া ভর্তির পর থেকে হাসপাতালে কর্তব্যরত কোনও চিকিৎসক রোগীকে দেখতে আসেননি। পরে সকালে রোগী ব্যথা বেড়ে গেলে তাকে ওটি রুমে নিয়ে যাওয়া হয় এবং সকাল ৮ টার দিকে গাইনি কানসালট্যান্টের ডাঃ ফারজানা সারওয়ার কে দিয়ে সিজার করানো হয়। পরে সিজার করার পর নবজাতকে দ্রুত শিশু হাসপাতালে নিয়ে যাওয়ার পরামর্শ দেন হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ। সময় সংকটের কারনে শিশুটিকে এনাম মেডিকেল কলেজ এন্ড হাসপাতালে নিয়ে গেলে সেখানকার কর্তব্যরত চিকিৎসক বলেন শিশুটির মৃত্যু হয়েছে গত ৪ ঘন্টা আগে। স্বজনদের অভিযোগ, সিজার করার পর ছেলে শিশু জন্ম নিলেও ৪ ঘন্টা আগে শিশুটি গর্ভে মারা গেছে জেনেও হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ আমাদের মৃত শিশুটি নিয়ে অন্য হাসপাতালে পাঠিয়েছে। স্বজনরা বলেন আমাদের রোগী যখন ভর্তি করা হয়েছিল তখন যদি সিজার করতো তখন হয়ত আমাদের সন্তান আমরা জীবিত পেতাম। এই হাসপাতাল কর্তৃপক্ষের অবহেলায় আমাদের সন্তান আজ পৃথিবীর আলো দেখতে পেলোনা। এদিকে হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ স্ট্যান্ডার্ড হসপিটাল এন্ড ডায়াগনস্টিক সেন্টারের ম্যানেজার ইত্তেহাদুল ইসলাম ইমরান অবহেলার বিষয়টি অস্বীকার করে বলেন, আমি রাতে ছিলাম না আমি সকালে এসে বিষয় টি জেনেছি। তবে আমি হাসপাতাল মালিক পক্ষকে বিষয়টি জানিয়েছি তারা বলেছেন সোমবার ২৮ তারিখে বিষয়টি দেখবে। স্ট্যান্ডার্ড হসপিটাল এন্ড ডায়াগনস্টিক সেন্টারে প্রসূতি শাকিলা (২১) এর অপারেশন করেন ডাঃ ফারজানা সারওয়ার তিনি বলেন, পূর্বের আলট্রাসনোগ্রাফি প্রতিবেদনে বাচ্চা সুস্থ ও স্বাভাবিক রয়েছে বর্তমান আলট্রাসনোগ্রাফি আমি পাইনি। রাতে কি হয়েছে আমি জানিনা আমি সকালে রোগীকে সিজার করাই। তবে শিশুটির মুভমেন্ট ভালো না পাওয়ায় শিশুটিকে শিশু হাসপাতালে নেয়ার পরামর্শ দেই।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *