চিকিৎসাধীন অবস্থায় ছাত্রের মৃত্যুর ঘটনায় রাজশাহী মেডিকেল হাসপাতালে থমথমে অবস্থা বিরাজ করছে

চিকিৎসাধীন অবস্থায় ছাত্রের মৃত্যুর ঘটনায় রাজশাহী মেডিকেল হাসপাতালে থমথমে অবস্থা বিরাজ করছে

মাসুদ আলী পুলক রাজশাহী ব্যুরোঃ-
রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ের শহীদ হবিবুর রহমান হলের চারতলার ছাদ থেকে পড়ে এক শিক্ষার্থী নিহত হয়েছেন। বুধবার রাত ৮টার দিকে ওই শিক্ষার্থী ছাদ থেকে পড়ে গেলে তাকে রাজশাহী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নেয়া হয়। সেখানে চিকিৎসকরা তাকে মৃত ঘোষণা করেন।

নিহত শিক্ষার্থীর নাম শাহরিয়ার (২৬)। তিনি মার্কেটিং বিভাগের চতুর্থ বর্ষের শিক্ষার্থী। শাহরিয়ার হবিবুর রহমান হলের ৩৫৪ নং রুমের আবাসিক ছাত্র।

এদিকে শিক্ষার্থীর মৃত্যুর পর উত্তেজিত হয়ে ওঠে তাঁর সহপাঠীরা। মৃত্যুর পর হাসপাতালে অবস্থান নিয়েছেন প্রায় কয়েক শ শিক্ষার্থী। এ সময় তাঁরা হাসপাতালে ব্যাপক ভাঙচুর চালায়।

রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ের ছাত্র উপদেষ্ঠা অধ্যাপক তারেক নুর জানান, কিভাবে শাহরিয়ার ছাদ থেকে পড়েছে তা এখনো নিশ্চিত হওয়া যায়নি। তবে অতিরিক্ত রক্তক্ষরণের কারণে তার মৃত্যু হয়েছে বলে চিকিৎসকরা জানিয়েছেন।

তিনি বলেন, রাত ৮টার দিকে শাহরিয়ার ছাদ থেকে পড়ে গেলে সহপাঠিরা তাকে প্রথমে বিশ্ববিদ্যালয় হাসপাতালে নেয়। সেখান থেকে তাকে রাজশাহী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে পাঠানো হয়। হাসপাতালে ভর্তি করার পর তাকে ৮নং ওয়ার্ডে নেয়া হলে চিকিৎসকরা তাকে মৃত ঘোষণা করেন।

এদিকে, রাবি ছাত্র নিহতের ঘটনায় রাজশাহী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভাঙচুর করা হয়েছে। এ সময় তারা হাসপাতালের ৮ নং ওয়ার্ডের দুই চিকিৎসককে অবরুদ্ধ করে রাখে।

রাজশাহী নগরের রাজপাড়া থানার ওসি জাহাঙ্গীর আলম জানান, চিকিৎসায় অবহেলার অভিযোগ তুলে শিক্ষার্থীরা হাসপাতালের গেটসহ ৮নং ওয়ার্ডে ভাঙচুর চলায়। এ সময় হাসপাতালের নিরাপত্তা কর্মীদের সঙ্গে তাদের ধাওয়া পাল্টা ধাওয়া হয়। পরে শিক্ষার্থীরা ৮নং ওয়ার্ডের দুইজন চিকিৎসককে অবরুদ্ধে করে রাখে। খবর পেয়ে অতিরিক্ত পুলিশ, বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষক ও রাজনৈতিক নেতা গিয়ে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনার চেষ্টা করছেন।

বিক্ষুব্ধ শিক্ষার্থীদের দাবি, ৮ নম্বর ওয়ার্ডে নেওয়ার পর অব্যবস্থাপনায় চিকিৎসা হয়নি শাহরিয়ারের। যারা দায়িত্বে ছিলেন তাদের নাম প্রকাশ করে এখনই শাস্তি দিতে হবে। এ নিয়ে শিক্ষার্থীরা হাসপাতালে অনশন করছেন।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *