মোহনপুর উপজেলা পরিষদ নির্বাচনে দুই এমপির চেয়ারম্যান প্রার্থীর লড়াই

মোঃ মনোয়ার হোসেন, রাজশাহী

মোহনপুর উপজেলা পরিষদ নির্বাচনে প্রতীক বরাদ্দের দিন থেকেই প্রার্থীদের পোস্টারে ছেয়ে গেছে উপজেলার বিভিন্ন এলাকা। একটি পৌরসভা ও ৬টি ইউনিয়ন নিয়ে মোহনপুর উপজেলা গঠিত। নির্বাচনে আওয়ামী লীগের দলীয় মনোনয়ন না থাকায় আগ্রহী প্রায় সব প্রার্থী নির্বাচনে অংশগ্রহণ করেছেন। তবে ভাইস চেয়ারম্যান পদে অন্য দলের প্রার্থীরাও রয়েছেন। ৫ জন চেয়ারম্যান প্রার্থী, ৫ জন পুরুষ ভাইস চেয়ারম্যান এবং ৫ জন মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান পদের প্রার্থীরা গোটা উপজেলা জুড়ে নির্বাচনী প্রচারণা ও গণসংযোগ চালাচ্ছেন। বিভিন্ন এলাকায় ছোট ছোট নির্বাচনী জনসভা করছেন। আইন অনুযায়ী, ভোট গ্রহণ শুরুর ৩২ ঘণ্টা আগ পর্যন্ত চলবে প্রচার। গত ১৩ই মে (সোমবার) ষষ্ঠ উপজেলা পরিষদ নির্বাচনের তৃতীয় ধাপের ভোটে প্রতিদ্বন্দ্বী প্রার্থীদের মধ্যে প্রতীক বরাদ্দ হয়ে গেছে। নির্বাচন অর্থাৎ ভোটগ্রহণ অনুষ্ঠিত হবে আগামী ২৯ মে (বুধবার) সকাল ৮ টা থেকে বিকাল ৪ টা পর্যন্ত বিরতিহীনভাবে। এ উপজেলা পরিষদ নির্বাচনে মোট ভোটার সংখ্যা ১,৪৫,৫৪৩ জন। এদের মধ্যে পুরুষ ভোটার সংখ্যা ৭২,৭০৪ জন এবং মহিলা ভোটার সংখ্যা ৭২,৮৩৯ জন।
এ উপজেলায় নির্বাচন ও প্রচারণার মাঠে জামাত-বিএনপি বা অন্য কোন দলের চেয়ারম্যান প্রার্থী না থাকায় এ নির্বাচনে চেয়ারম্যান পদে উপজেলা আওয়ামী লীগের নেতা-কর্মীরা বিভক্ত হয়ে দু’পক্ষে চেয়ারম্যান নির্বাচন করার লক্ষ্যে মাঠে কাজ করছেন।
উপজেলা পরিষদ নির্বাচনের তৃতীয় ধাপে রাজশাহীর দুইটি উপজেলা নির্বাচন অনুষ্ঠিত হবে (পবা এবং মোহনপুর)। এই দুইটি উপজেলা নিয়ে সংসদীয় আসন ৫৪, রাজশাহী-৩ গঠিত। বর্তমানে এই আসনে সাংসদ রয়েছেন মোঃ আসাদুজ্জামান আসাদ এবং সাবেক সাংসদ রয়েছেন মোঃ আয়েন উদ্দিন। মোহনপুর উপজেলা জুড়ে সাধারণ ভোটারদের মাঝে চলছে চুল ছেঁড়া বিশ্লেষণ। কে হতে পারে আগামী ২৯ তারিখের ভোটে মোহনপুর উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান। কেউ কেউ ধারণা করছে, যেহেতু সাবেক এমপি আয়েন উদ্দিনের বাড়ি মোহনপুর উপজেলায় এবং তিনি নিজেও মাঠে নেমে ভোট চাওয়াসহ প্রচার প্রচারণা চালাচ্ছেন এবং তার সাথে ৪ জন ইউপি চেয়ারম্যান সহ পৌর মেয়রও রয়েছেন সেহেতু তার প্যানেলের চেয়ারম্যান প্রার্থী আল-মোমিন শাহ্ গাবরু বিজয় অর্জন করবে। অপরদিকে অনেকেরই ধারণা, বর্তমান এমপি আসাদুজ্জামান আসাদ এর প্যানেলের আনারস প্রতীকের প্রার্থী আফজাল হোসেন বকুল বিজয় অর্জন করবে এবং তিনি মোহনপুর উপজেলা পরিষদে আগামীদিনে চেয়ারম্যানের দায়িত্ব পালন করবে। তবে বর্তমান এমপি দলীয় নির্দেশনার কারণে মাঠে না থাকলেও তার তার প্যানেলের ৪ জন চেয়ারম্যান প্রার্থীই সাধারণ ভোটার ও দলীয় নেতৃবৃন্দের নিকট দাবি করছেন আমার প্রতি বর্তমান এমপির সমর্থন রয়েছে। অন্যদিকে বর্তমান এমপির আপন ছোট ভাই রফিকুজ্জামান রফিককে আনারস মার্কা প্রতীকের প্রার্থী আফজাল হোসেন বকুলের পক্ষে বিভিন্ন নির্বাচনী প্রচারণার মাঠে ভোট চাইতে দেখা গেছে।
অপরদিকে সাধারণ ভোটারদের অনেকের বিশ্লেষণে বর্তমান সংসদ সদস্য মোঃ আসাদুজ্জামান আসাদ (এমপি) প্যানেলের ঘোড়া মার্কা প্রতীকের প্রার্থী আলহাজ্ব মোঃ এনামুল হক, দোয়াত কলম মার্কা প্রতীকের প্রার্থী মেহেবুব হাসান রাসেল, মোটরসাইকেল মার্কা প্রতীকের প্রার্থী আলমগীর মোরশেদ রনজু নিজেদের বিজয় অর্জনের জন্য ব্যাপক প্রচার-প্রচারণা চালাচ্ছেন। এই ৩ জন চেয়ারম্যান প্রার্থীর মধ্যে এখন পর্যন্ত এগিয়ে আছেন ঘোড়া প্রতীকের প্রার্থী আলহাজ্ব এনামুল হক। আলমগীর মোর্শেদ রঞ্জু এবং মেহবুব হাসান রাসেলও পাবেন অনেক ভোট। সেক্ষেত্রে বর্তমান এমপি প্যানেল হেরে যাওয়ার সম্ভাবনা বেশি এবং মোহনপুর উপজেলা পরিষদ নির্বাচনে চেয়ারম্যান হবেন সাবেক এমপি প্যানেলের আল মোমিন শাহ গাবরু।
মোহনপুর উপজেলা পরিষদ নির্বাচনে অংশগ্রহণকারী সকল চেয়ারম্যান প্রার্থী ও তাদের ভক্ত-সমর্থক এবং নেতাকর্মীরা এখন পর্যন্ত নির্বাচনে বিজয় অর্জনের জন্য উপজেলা জুড়ে ব্যাপক প্রচার প্রচারণা চালাচ্ছেন। নিজেদের পক্ষে নেতাকর্মী ও ভোটারদের আনার জন্য প্রার্থী ও তাদের ভক্ত-সমর্থকদের নানা রকম প্রতিশ্রুতি সহ নগদ অর্থ প্রদানের খবর পাওয়া যাচ্ছে। সাধারণ ভোটারদের সঙ্গে কথা বলে জানা যায়, এই উপজেলায় নির্বাচনী মাঠে উপজেলা পরিষদ নির্বাচনে চেয়ারম্যান পদের প্রার্থীদের মধ্যে প্রচারণা সহ নির্বাচনে বিজয় অর্জনের ক্ষেত্রে এখন পর্যন্ত অনেকটাই এগিয়ে আছেন বর্তমান এমপি আসাদুজ্জামান আসাদ প্যানেলের আনারস মার্কা প্রতীকের প্রার্থী আফজাল হোসেন বকুল এবং সাবেক এমপি আয়েন উদ্দিন প্যানেলের কাপ-পিরিচ মার্কা প্রতিকের প্রার্থী আল-মোমিন শাহ গাবরু। অর্থাৎ মোহনপুর উপজেলা পরিষদ নির্বাচনে দুই এমপির চেয়ারম্যান প্রার্থীদের মধ্যে হচ্ছে নির্বাচনী লড়াই।
মোহনপুর উপজেলা পরিষদ নির্বাচনে সহকারি রিটার্নিং কর্মকর্তা ও উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা আয়েশা সিদ্দিকা বলেন, এখন পর্যন্ত নির্বাচনের মাঠে প্রার্থীদের ভক্ত-সমর্থকদের মধ্যে ছোট ছোট কিছু বিচ্ছিন্ন ঘটনা ব্যতীত তেমন কোন বড় ধরনের ঘটনার খবর পাওয়া যায়নি।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *